আজ   ,
সংবাদ শিরোনাম :

চাকরিতে প্রবেশের বয়সীমা বাড়ানোর খবরটি গুজব: ওবায়দুল কাদের

চাকরিতে প্রবেশের বয়সীমা বাড়ানোর খবরটিকে গুজব বলে জানালেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ নিয়ে আমি কোনো কথা বলিনি। প্রথমে আমি এটা জানিয়ে রাখছি, এটা তারাই (চাকরিপ্রার্থীরা) গুজব ছড়াচ্ছে। নিউজের মধ্যে আমার কোনো ভয়েস আছে? ভয়েস না থাকলে হয় কী করে! এটা ফলস অ্যান্ড ফেব্রিকেটেড!

চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, চাকরিতে প্রবেশের সিদ্ধান্ত সরকারি পর্যায়ে এখনও হয়নি। আমি এ ব্যাপারে কোথায় মন্তব্য করালম, আমার তো জানা নেই। ইট ইজ ফেইক অ্যান্ড ফলস।

নিজের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, আমি এ ধরনের কোনো কথা বলিনি। আমি সরকার ও দলের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় আছি। আমার ইরেসপন্সিবল (দায়িত্বজ্ঞানহীন) কোনো কথা বলা উচিত হবে না।

সংবাদ সম্মেলনে জামায়াতের ক্ষমা চাওয়ার কথা বলে সদ্য পদত্যাগ করা দলটির সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, জামায়াত নেতার পদত্যাগ তার ব্যক্তিগত বিষয়। এটা তাদের দলের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে। জামায়াত বিভক্ত হতে যাচ্ছে এ খবর প্রকাশের পর দলের ভেতরে যারা আছে তারা কেউ কেউ সরে যেতে পারেন। দলটির নেতাদের ইনটেনশন এখনও ক্লিয়ার (পরিস্কার) না। ইনটেনশনটা আগে ক্লিয়ার হোক, তারপর মন্তব্য করা যাবে।

জামায়াত যদি নতুন নামে আসে, তাহলে তাদের বিষয়ে কী হবে- এমন এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নতুন নামে জামায়াত। নতুন বোতলে পুরোনো মদ যদি আসে, তাহলে পার্থক্যটা আর কী। নতুন নামে পুরনো আদর্শই যদি থাকে, তাহলে তো একই কথা।

জামায়াত ৭১ এর জন্য ক্ষমা চাইলে কতটুকু দায়মুক্ত হবে- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি এতকিছু বুঝি না, আমার বক্তব্য হচ্ছে এখনো তারা ক্ষমা চায়নি। এখনো তারা এটা অফিসিয়ালি এপোলোজাইজ করেনি। আমি গতকাল বলেছি তারা এপোলোজাইজ করার আগে আমাদের কোনো মন্তব্য করা সমীচীন নয়।এপোলোজাইজ করার পর মানবতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধীদের বিচারপ্রক্রিয়া বন্ধ হবে না।

জামায়াত নতুন নামে আসলে আওয়ামী লীগ তাদেরকে স্বাগত জানাবে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। নানা কথা মিডিয়ায় আসছে। এগুলো জামায়াতের কৌশলও হতে পারে। এগুলো আগে পরিষ্কার হওয়া দরকার, তার আগে আমরা কেনো মন্তব্য করতে যাব?

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর প্রমুখ।সুত্র যুগান্তর

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।


ঘোষনাঃ