আজ   ,
সংবাদ শিরোনাম :

বেনাপোলে গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ-শিক্ষার কণ্ঠস্বর

 

জয়নাল আবেদীন,জেলা প্রতিনিধি,যশোর।।
যশোরের বেনাপোল বাহাদুরপুর ইউনিয়নের বলিদাহ গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে সুমনা বেগম (২৭) নামে কন্যা সন্তানের এক
জননীকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।বৃহস্প্রতিবার রাতে এ হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহত সুমনা ঝিকরগাছা নিশ্চিন্তপুর গ্রামের সহিদুল ইসলামের মেয়ে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত ৮ বছর আগে শার্শার বলিদাহ গ্রামের মোবারক হোসেনের ছেলে উজ্জলের সাথে বিয়ে হয় শিয়ালকোনা গ্রামের সুমনা খাতুনের। তাদের ৬ বছরের সংসার জীবনে একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
এরই মধ্যে বিভিন্ন সময়ে পারিবারিক কলহে তার উপর নির্যাতন করে আসছিল স্বামীসহ পরিবারের সদস্যরা।সম্প্রতি নির্যাতনে তার গর্ভের একটি সন্তান নষ্ট করে দেয়া হয় বলেও অভিযোগ নিহতের স্বজনদের। ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার রাতে তার উপর আবারও চালানো হয় অমানষিক নির্যাতন।
এক পর্যায়ে পিটিয়ে হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে দেয় তাকে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে লাশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।নিহতের মা সাহিদা খাতুনসহ স্বজনরা বলেন, সুমনাকে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে। উজ্জলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা। এদিকে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য হত্যাকারীদের পক্ষে জমি লিখে দেয়াসহ ১০ লাখ টাকা নিয়ে হত্যা ঘটনাটি চেপে যাওয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলে জানান নিহতের মামা শিক্ষক শওকত আলী ও বরকত আলী।
শার্শা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে হত্যা নাকি আত্নহত্যা। তবে তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানা যায়। এদিকে সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে হত্যাকরীর বিচার চেয়ে উর্ধ্বতন কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেন স্বজনরা।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।


ঘোষনাঃ