আজ   ,
সংবাদ শিরোনাম :

মনোহরদী বাসীর সেবা করার সুযোগ চাই- লায়ন খন্দকার জাহাঙ্গীর কবির

মাহবুবুর রহমান, নরসিংদী প্রতিনিধিঃ

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা পরিষদে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান লায়ন খন্দকার জাহাঙ্গীর কবির। তিনি মনোহরদী উপজেলার বড় মির্জাপুর গ্রামের মরহুম খন্দকার শামসুদ্দিন আহমেদ এর সন্তান। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে ১৯৮১-১৯৮৬ সাল পর্যন্ত অধ্যয়নরত অবস্থায় ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সক্রিয় থেকে ছাত্রীগের বিভিন্ন মিটিং মিছিল ও স্বৈরাচার বিরোধী  ছাত্র আন্দোলনে অংশ নেন। তিনি কাচিকাটা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ উপদেষ্টা সদস্য। নিজ এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও সেবামূলক কাজসহ রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী  জননেত্রী শেখ হাসিনার নামে উমরা হজ্জ্বও পালন করেন। ২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ব্যবসায়ী প্রতিনিধি হিসেবে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ৪র্থ জাতিসংঘ সম্মেলনে সস্ত্রীক যোগদান করেন বলে জানান জাহাঙ্গীর কবির।

লায়ন খন্দকার জাহাঙ্গীর কবির বলেন ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির প্রতি দুর্বল ছিলাম। সেজন্য একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করেছি সর্বদা। কোন সময় কোন দলীয় পদলোভী ছিলামনা। তবে  এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও সেবামূলক কর্মকান্ড দুস্থ, অসহায়, প্রতিবন্ধীদের সাহায্য সহযোগীতায় প্রতিনিয়ত যুক্ত থাকার পাশাপাশি আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হয়ে কাজ করতেই সাচ্ছন্দবোধ করেছি। তবে দলীয় নেতাকর্মীসহ এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে সুদৃঢ় সম্পর্কের কারণ ও সেবা করার উদ্দেশ্যে বিগত সময়গুলোতে নিজ এলাকা মনোহরদী উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গরীব ও অসহায়দের মাঝে টিউবওয়েল, সেলাই মেশিন, হুইল চেয়ার এবং গৃহহীনদের মাঝে পাকা ও উন্নতমানের টেকসই সম্পন্ন টিনশেড ঘর তৈরি করে দেয়া সহ অন্যান্য সামগ্রী বিতরন করে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

বিশ্বের সর্ববৃহৎ আন্তর্জাতিক সেবামূলক সংস্থা লায়ন্স ক্লাবস ইন্টারন্যাশনাল এর ২০১৩-১৪ সালের ডিস্ট্রিক গভর্নর হিসেবে শ্রেষ্ঠতম গভর্নর নির্বাচিত হয়ে প্রেসিডেন্সয়াল মেডেল প্রাপ্ত এবং আন্জুমান মফিদুল ইসলামের আজীবন সদস্য জাহাঙ্গীর কবির ডোনেট বাংলাদেশকে বলেন, আমি মনোহরদীবাসীর পাশে থেকে জনগণের সেবা করে যেতে চাই। অতীতে সাধারণ মানুষের সুখে দু:খে পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদেরও ইচ্ছে আমি যেন অব্যাহতভাবে এলাকাবাসীর জন্য কাজ করি। ব্যক্তিগতভাবে আল্লাহ আমাকে সবদিক দিয়ে সুখে রেখেছেন বিধায় আমার কোন চাওয়া পাওয়া নেই। সেবার মানসিকতা নিয়ে জনগণের পাশে থাকাই একমাত্র চাওয়া। সেজন্য এবার আমি মনোহরদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চাই। আমি শতভাগ আশাবাদী দলও আমাকে মনোনয়ন দেবে। 

আর্থসামাজিক উন্নয়নের মাধ্যমে মনোহরদী উপজেলাকে একটি আধুনিক উপজেলা শহর হিসেবে গড়ে তোলার পাশাপাশি প্রতিটি ইউনিয়নকে আধুনিক করে গড়ে তুলতে চাই। এলাকার বিভিন্ন সামাজিক, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সংযুক্ত থেকে মনোহরদী বাসীর সুখ-দুঃখে পাশে থেকে একটি জনমত তৈরী করেছি। তাই ভবিষ্যতেও মনোহরদী বাসীর সেবা করার লক্ষ্য নিয়ে দলীয় মনোনয়ন চাইবো, আশা করি দল বিমুখ করবে না। আমি সকলের দোয়া ও সমর্থন চাই।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।


ঘোষনাঃ