আজ   ,
সংবাদ শিরোনাম :

রায়পুরে মেঘনা নদীতে ২ মাস মাছ ধরা নিষিদ্ধ

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি :

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার মেঘনা নদীর অভয়াশ্রম এলাকায় জাটকা সংরক্ষনের জন্য ইলিশসহ সব ধরণের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। আগামীকাল ১মার্চ থেকে ৩০এপ্রিল পর্যন্ত নদীত সব ধরণের মাছ ধরা নিষিদ্ধ বলে জানিয়েছেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাঃ বেলায়ত হোসেন সবুজ। 

উপজেলা মৎস্য অফিসসূত্রে জানা যায়, চাঁদপুরের ষাটনল এলাকা থেকে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার চর আলেকজেন্ডার পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার অভয়াশ্রম নির্ধারণ করা হয়েছে। অভয়াশ্রম এলাকায় ২ মাস মেঘনা নদীতে সব ধরণের মাছ ধরা নিষিদ্ধ। উপজেলার তালিকাভুক্ত ৬ হাজার ৩’শ জন জেলে রয়েছে। এসব জেলেদের মধ্যে ৪২০ পরিবারকে সরকারি সহায়তা প্রদান করা হবে। জাটকা নিধন রোধ করতে এবং জেলেদের বিরত থাকতে ইতিমধ্যে বিভিন্ন মাছ ঘাটে উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগের যৌথ উদ্যাগে জেলেদের নিয়ে সচেতনতামূলক সভা, লিফলেট বিতরণ, মাইকিং ও মাছের আড়ৎগুলোর সামনে ব্যানার সাঁটানো হয়েছে। সচেতনতামূলক সভাগুলোতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিল্পী রাণী রায়, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ বেলায়েত হোসেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযাদ্ধা মোঃ শহীদ উল্যাহ বি.এস.সি, মাস্টার আবুল হোসেন হাওলাদার, আড়ৎদার মোঃ সাইজুদ্দিন মোল্যা ও উপজেলা কটিনজট কমান্ডার হুমায়ুন খান প্রমুখ।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্তকর্তা মোঃ বেলায়ত হোসেন বলেন, সরকারী নিষেধাজ্ঞা মেনে জেলেরা যদি এই দুই মাস জাটকাসহ ইলিশ মাছ না ধরে তাহলে এই মৌসুমে উৎপাদনে লক্ষমাত্রা অর্জিত হবে। জাটকা সংরক্ষনের জন্য এবং লক্ষমাত্রা অর্জন করার লক্ষ্য কোস্টগার্ড ও মৎস্য বিভাগের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।


ঘোষনাঃ