অনলাইন ডেস্ক

দিল্লীর সেন্ট স্টিফেন কলেজের গণিতের শিক্ষার্থী নীলকণ্ঠ ভানু প্রকাশ বিশ্বের দ্রুততম ‘মানব ক্যালকুলেটর’ হিসাবে বিশ্ব রেকর্ড করেছেন।

ভারতের হায়দরাবাদের ২০ বছর বয়সী নীলকণ্ঠ ভানু প্রকাশ সম্প্রতি লন্ডনে অনুষ্ঠিত মাইন্ড স্পোর্টস অলিম্পিয়াড মেন্টাল ক্যালকুলেশন ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের হয়ে প্রথম স্বর্ণপদক অর্জন করেন।

এনডিটিভি বলছে, ১৩টি দেশ থেকে অংশ নেয়া ২৯ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে তিনি প্রথম হয়ে স্বর্ণপদক জিতেছেন।

ভানু প্রকাশ নিজেই এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভানু প্রকাশ বলেন, বিচারকরা আমার গণনাবেগকে ক্যালকুলেটরের চেয়ে বেশি দ্রুত গতির বলেছেন। আমি ৬৫ পয়েন্ট পেয়ে স্বর্ণপদক জিতেছি।

যুক্তরাজ্য, জার্মানি, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ফ্রান্স, গ্রীস, ভারত, লেবাননসহ ১৩ দেশের ২৯ জন অংশগ্রহণকারীকে নিয়ে মাইন্ড স্পোর্টস অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হয়। গণিত বিষয়ে এই আয়োজন সর্বপ্রথম হয়েছিলো ১৯৯৮ সালে।

ভানু প্রকাশ বলেন, বিশ্বের দ্রুততম মানব ক্যালকুলেটর হওয়ার জন্য আমি চারটি বিশ্ব রেকর্ড করেছি। আমার মস্তিষ্ক একটি ক্যালকুলেটরের গতির চেয়ে দ্রুত গণনা করে বলে জানানো হয়েছে প্রতিযোগিতায়।

এনডিটিভি বলছে, মানসিক দক্ষতা ও মাইন্ড গেমের ওপর এটি বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আয়োজন, যেখানে ভারতের জন্য প্রথম অর্জন ছিনিয়ে এনেছেন ভানু প্রকাশ। এটি মূলত ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়।

ভবিষ্যতে ভানু প্রকাশ গণিত উন্নয়নে কাজ করতে চান৷ তিনি ‘ভিশন ম্যাথ’ ল্যাব প্রতিষ্ঠা করে শিশুদের গণিতে দক্ষতা অর্জন কাজ করার আশা করছেন।

নীলকণ্ঠ ভানু প্রকাশের বাবা ছেলের এ অর্জন ভারতীয় হিসেবে গর্ববোধ করছেন।

এনডিটিভিকে ভানু প্রকাশের বাবা শ্রীনীবাস জোনালগাদ্দা বলেন, ভানু মাইন্ড স্পোর্টস অলিম্পিকের সোনার মেডেল অর্জন করায় একজন ভারতীয় হিসেবে আমি গর্বিত। শিশুদের মন থেকে গণিতের ভয় দূর করতে আমার ছেলে কাজ করতে চায়। বিষয়টি সত্যি আনন্দের।

SHARE